October 31, 2020, 1:37 am

পাকিস্তানি বাহিনীর বিরুদ্ধে প্রথম সফল বিমান হামলা নারায়ণগঞ্জে

Monday, August 3, 2020

একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধের চূড়ান্ত পর্যায়ে পাকিস্তানী বাহিনীর রসদ ও সৈন্য সরবরাহ বন্ধ করে দিয়েছিলো বিমান বাহিনীর আক্রমণ। ৩ ডিসেম্বর পাকিস্তানী বাহিনীর বিরুদ্ধে সরাসরি প্রথম অভিযান চালায় বাংলাদেশের বিমান বাহিনী।

Nagad Banner

নারায়ণগঞ্জ শহরের কাছে গোদনাইল দেশের অন্যতম বৃহৎ তেলের ডিপো। একাত্তরে ছিলো পাকিস্তানী বাহিনীর শক্ত ঘাঁটি। ৩ ডিসেম্বর বাংলাদেশ বিমান বাহিনী প্রথম হামলা চালায়। পাকিস্তান বিমান বাহিনীর রসদ সরবরাহ হতো এখান থেকেই। এখানে মুক্তিযোদ্ধা ও নিরীহ বাঙ্গালীদের ধরে এনে নির্যাতনও করতো পাকিস্তানী বাহিনী। তেলের ডিপোর পাশেই একটি জেটি রয়েছে, যেখানে পাকিস্তানী হানাদাররা নিরীহ মানুষজনকে এনে নির্যাতন শেষে হত্যা করে পানিতে ভাসিয়ে দিতো।

পাকিস্তানী বিমানবাহিনীকে দুর্বল করতে বাংলাদেশ বিমান বাহিনী এ ডিপোকেই প্রথম টার্গেটে পরিণত করে। চালায় সফল অভিযান। সফল ওই হামলায় নেতৃত্ব দিয়েছিলেন সেসময়ের স্কোয়াড্রন লিডার সুলতান মাহমুদ ও ফ্লাইট লেফটেন্যান্ট বদরুল আলম। পরে বাংলাদেশ বিমান বাহিনী প্রধান হিসেবে অবসরে যাওয়া এয়ার ভাইস মার্শাল সুলতান মাহমুদ জানিয়েছেন সেদিনের সেই অবিস্মরণীয় হামলার কথা।

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন: নারায়ণগঞ্জে এই ডিপোতে হামলার বিষয়টি একটি ঐতিহাসিক ঘটনা। কারণ বাংলাদেশ বিমানবাহিনী এখানেই প্রথম আকাশযুদ্ধে আক্রমণ করে। প্রথম সফল অভিযানের পর পর্যায়ক্রমে সিলেট থেকে শুরু করে চট্টগ্রাম পর্যন্ত একের পর এক আক্রমণ করা হয় এবং ধ্বংস করে দেয়া হয় বাংলাদেশ ভূখণ্ডে পাকিস্তানি বাহিনীর উড্ডয়ন ক্ষমতা।

ভারতের একটি বিমানঘাঁটি থেকে ফ্লাইট লেফটেন্যান্ট শামসুল আলম ও আকরামের নেতৃত্বে রকেট ছুঁড়ে চট্টগ্রাম তেল ডিপোও ধ্বংস করে দেয় বাংলাদেশ বিমান বাহিনী। বাংলাদেশ ভূখণ্ডে পাকিস্তানী বাহিনীর উড্ডয়ন ক্ষমতা শেষ হয়ে যায় অতি দ্রুত।


Latest Blog